পাকিস্তান আগামী বিশ্বকাপে ইতিহাস বদলে দেবে ।




পাকিস্তান আগামী বিশ্বকাপে ইতিহাস বদলে দেবে ।





বৈশ্বিক টুর্নামেন্টেও ভারতকে হারিয়ে শিরোপা জিতেছে তারা। কিন্তু একমাত্র বিশ্বকাপেই ভারতকে এখনও পর্যন্ত হারাতে পারেনি পাকিস্তান। এখনও পর্যন্ত বিশ্বকাপে ছয়বার ভারতের মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তানিরা। কিন্তু চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের হারানোর স্বাদ এখনও পর্যন্ত নিতে পারেনি ইমরান খান এবং মিয়াঁদাদের দেশ।


তবে ২০১৯ বিশ্বকাপে নাকি পাকিস্তান এই ইতিহাস বদলে দেবে। সরফরাজ আহমেদের দল আসন্ন বিশ্বকাপে প্রস্তুত ভারতকে হারিয়ে দিতে। দেশটির সাবেক অধিনায়ক এবং উইকেটরক্ষক মঈন খান বিশ্বাস করেন, এবার ভারতকে হারিয়ে ইতিহাস গড়বে পাকিস্তান।
পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যমকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে পাকিস্তানের ১৯৯২ সালের বিশ্বজয়ী দলের সদস্য মঈন খান জানান, মিথ ভেঙে আগামী বিশ্বকাপে প্রতিবেশী দেশকে হারাতে তৈরি পাকিস্তান।
প্রসঙ্গত, আগামী ১৬ জুন বিশ্বকাপের গ্রুপপর্বে মুখোমুখি হবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দেশ ভারত এবং পাকিন্তান। সরফরাজ আহমেদের নেতৃত্বে পাকিস্তান দলটির সাম্প্রতিক ফর্মই মঈন খানের আস্থা বাড়িয়ে দিয়েছে। যাতে করে শক্তিশালী ভারতকে না হারানোর কোনো কারণ দেখছেন না তিনি।


ভারতকে হারানোর ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী মঈন খান বলেন, ‘সরফরাজ আহমেদের দলে বর্তমানে এমন কিছু প্রতিভা রয়েছে যা ভারতের বিরুদ্ধে তাদের জয় এনে দিতে সক্ষম হবে। এছাড়া দলটির গভীরতাও অনেক বেশি।’






ইংল্যান্ডের মাটিতে পাকিস্তানের সাম্প্রতিক সাফল্যও সামনে এগিয়ে রাখছেন মঈন। তিনি বলেন, ‘ইংল্যান্ডের মাটিতে গত কয়েকবছর ধরে যথেষ্ট ভালো ফল করছে পাকিস্তান। পাশাপাশি বিশ্বকাপে খেলতে নামার আগে দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া এবং ইংল্যান্ডের মাটিতে ওয়ানডে ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা।’

বিশ্বকাপ শুরুর আগে ইংল্যান্ডের আবহাওয়ার সঙ্গে মানিয়ে নিতে তিন সপ্তাহের প্রস্তুতিক্যাম্প করবে পাকিস্তান। টিম ম্যানেজমেন্টের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন উইকেটের পেছনে গ্লাভস হাতে দু’শোরও বেশি ক্যাচের মালিক। এমনকি বিশ্বকাপের মতো আসরে দলনায়ক হিসেবে সরফরাজ আহমেদকেই প্রথম পছন্দ হিসেবে বাছাই করে রাখলেন তিনি। তিনি বলেন, ‘এই দলে সরফরাজের চেয়ে ভালো নেতৃত্বদানের ক্ষমতা কারও নেই।’

No comments

Powered by Blogger.